ক্রিকেট

মাঠের মধ্যে চোটের কারণে মৃত্যুবরণ করেছেন এই ৩ খেলোয়াড়; তালিকায় এক ভারতীয়

ক্রিকেট সত্যিই একটি অনিশ্চয়তার খেলা! এই খেলার দর্শক ও খেলোয়াড়দের মধ্যে একটি মেলবন্ধন সৃষ্টি করে। খেলোয়াড়দের জয়ে দর্শকরা আনন্দ করে আবার হেরে গেলে তারা কষ্ট পায়। একইভাবে খেলোয়াড়রাও দর্শকদের মনোরঞ্জন করতে গিয়ে কখনো এটা ভাবেন না যে এটা হয়তো তার জীবনের শেষ ম্যাচ হতে চলেছে। খেলায় চোট পাওয়া একটা সাধারণ বিষয়, তবে এমন কিছু মুহূর্ত এসেছিল যেখানে খেলোয়াড়রা মারাত্মক চোট পেয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন এবং অকালেই পৃথিবীকে বিদায় জানিয়ে দেন। এই প্রতিবেদনে তেমনি ৩ জন খেলোয়াড়ের কথা বলা হয়েছে:

১। ওয়াসিম রাজা:

৭০-৮০ দশকে পাকিস্তানের হয়ে ক্রিকেট খেলেছিলেন ওয়াসিম রাজা। ৫৭ টেস্ট ম্যাচে রাজা ২৮০০ এর বেশি রান করেছেন। সারের হয়ে পঞ্চাশ ওভারের ম্যাচ খেলার হার্ট অ্যাটাকে তার মৃত্যু হয়। তার দুটি ছেলে রয়েছে। তার স্ত্রী অ্যানিও একজন দুর্দান্ত ক্রিকেটর ছিলেন। 

২। রমন লাম্বা:

এই ভারতীয় ক্রিকেটারের খুব অল্প বয়সে মৃত্যু হয়। রমন লাম্বা ভারতের হয়ে ৩২টি ওডিআই এবং চারটি টেস্ট ম্যাচ খেলেছেন। ১৯৯৮ সালে বাংলাদেশের ঢাকায় একটি ক্লাব ম্যাচে ফরোয়ার্ড শর্ট লেগে ফিল্ডিং করার সময় মাথায় চোট পান। তিন দিন কোমায় থাকার পর তিনি মারা যান। সেই সময় তার বয়স ছিল মাত্র ৩৮ বছর।  প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে তার নামে ৮ হাজারের বেশি রান রয়েছে।

৩। ফিলিপ হিউজ: 

অস্ট্রেলিয়ার এই ক্রিকেটারের অকালমৃত্যু ক্রিকেট বিশ্বের ভক্তরা আজও ভুলতে পারেনি। নিউ সাউথ ওয়েলসের হয়ে শেফিল্ড শিল্ড ম্যাচে শন অ্যাবোটের বাউন্সার হিউজের মাথায় এসে আঘাত করে। সিডনির একটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় তাকে। মস্তিষ্কে রক্ত জমাট বাঁধার কারণে দুদিন পরে প্রাণ হারায় ফিলিপ হিউজ। তার এরকম মৃত্যুতে গোটা ক্রিকেটবিশ্ব গভীরভাবে শোকাহত হয়।  

error: Content is protected !!