ক্রিকেট

৪ ভারতীয় ওপেনার যারা পুরো টেস্ট ক্যারিয়ারে একটিও সেঞ্চুরি করতে পারেননি

ক্রিকেটের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো রেকর্ড করা, যাতে সেই খেলোয়াড় আন্তর্জাতিক পর্যায়ে বিশেষভাবে পরিচিত হতে পারেন। সেঞ্চুরি করলেই বোঝা যায় সেই খেলোয়াড়ের দক্ষতা এবং তখন তার দলের মর্যাদা বেড়ে যায়। তবে যখন কোন ক্রিকেটার দলের হয়ে ওপেনিং এর দায়িত্ব পালন করেন তার দায়িত্ব দ্বিগুণ হয়। কারণ একজন ওপেনার ব্যাটসম্যান অনেকক্ষণ খেলার সুযোগ পেয়ে দলকে শক্তিশালী জায়গায় পৌঁছে দেন।

অধিকাংশ ভারতীয় ওপেনাররা টেস্ট ক্রিকেটে সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন। তবে আজকের প্রতিবেদনে এমন ৪ ভারতীয় ওপেনারের কথা বলা হয়েছে যারা পুরো ক্যারিয়ারে একটিও টেস্ট সেঞ্চুরি হাঁকাতে পারেননি। এবার তাদের সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক:

১) অভিনব মুকুন্দ:

২০১১ সালে টেস্ট ক্রিকেটে ওপেনার হিসেবে ভারতীয় দলে অভিষেক করেন অভিনব মুকুন্দ। ঘরোয়া ক্রিকেটে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করলেও জাতীয় দলের হয়ে বিশেষ কিছু করতে পারেননি। তিনি তার টেস্ট ক্যারিয়ারে ৭টি ম্যাচ খেলেছেন এবং ৩২০ রান করেন। তার সর্বোচ্চ স্কোর ৮১ রান। একজন ওপেনার হয়েও সেঞ্চুরি হাঁকাতে ব্যর্থ হয়েছেন তিনি। সম্ভবত এই কারণেই নির্বাচকরা তাকে আর সুযোগ দেয়নি।

২) আকাশ চোপড়া:

২০০৩ সালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে ওপেনার হিসেবে জাতীয় দলে সুযোগ পেয়েছিলেন আকাশ চোপড়া। ঘরোয়া ক্রিকেটে অসাধারণ তিনি পারফর্ম করলেও টেস্ট ক্যারিয়ার দীর্ঘস্থায়ী হয়নি। তিনি ১০টি ম্যাচে দুটি হাফ সেঞ্চুরির সাহায্যে ৪৩৭ রান করেন। তার সর্বোচ্চ স্কোর ৬০। একজন ওপেনার হওয়া সত্ত্বেও কোনো সেঞ্চুরি হাঁকাতে পারেননি। এইভাবে তার ক্যারিয়ার শুরু হওয়ার আগেই শেষ হয়ে যায়।

৩) অজয় জাদেজা:

অজয় জাদেজা ভারতীয় দলের হয়ে ওয়ানডে ক্রিকেটে অনেক স্মরণীয় ইনিংস খেলেছেন কিন্তু টেস্টে একটিও সেঞ্চুরি হাঁকাতে পারেননি। ১৯৯২ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে তার টেস্ট অভিষেক হয়েছিল একজন ওপেনার হিসেবে। তিনি তার টেস্ট ক্যারিয়ারে মাত্র ১৫টি ম্যাচ খেলেছেন এবং ৪টি হাফ সেঞ্চুরি সহ ৫৭৬ রান। যদিও তিনি একবার সেঞ্চুরির কাছাকাছি এসেও ব্যর্থ হন। জাদেজার সর্বোচ্চ স্কোর ৯৬ রান।

৪) চেতন চৌহান: 

১৯৬৯ সালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে চেতন চৌহান টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক করেন। তৎকালীন চেতন চৌহান ও সুনীল গাভাস্কারের জুটিকে অন্যতম সেরা ওপেনিং জুটি বলে গণ্য করা হতো। তবে তিনি ৪০ টেস্টে একটিও সেঞ্চুরি হাঁকাতে পারেননি। এই সময় ৩১.৫৮ গড়ে ২০৮৪ রান করেছেন। যার মধ্যে রয়েছে কেবল ১৬টি হাফ সেঞ্চুরি। চৌহানও মাত্র ৩ রানের জন্য সেঞ্চুরি মিস করেন। তার সর্বোচ্চ স্কোর ৯৭ রান।

error: Content is protected !!