ক্রিকেট

এই ৫ ব্যাটসম্যান তাদের পুরো ওয়ানডে ক্যারিয়ারে একটিও ছক্কা হাঁকাতে পারেননি

ক্রিকেটের তিন ফরম্যাটে সবধরনের ব্যাটসম্যান দেখা যায়। কিছু খেলোয়াড় রয়েছেন যারা দ্রুত খেলে আবার অনেকেই রয়েছেন তাদের ইনিংসকে ধীর গতিতে এগিয়ে নিয়ে যায়। প্রতিটা খেলোয়াড় তার আগ্রাসন বা রক্ষণাত্মক শৈলীর মাধ্যমে নিজস্ব পরিচয় তৈরি করেছেন। তবে আন্তর্জাতিক ওয়ানডের কথা বলে এমন কিছু ব্যাটসম্যান রয়েছেন যারা তাদের পুরো ক্যারিয়ারে একটিও ছক্কা হাঁকাতে পারেননি। এবার দেখে নেওয়া যাক: 

১) ডিওন ইব্রাহিম:

জিম্বাবুয়ের ব্যাটসম্যান ডিওন ইব্রাহিম তার ওয়ানডে বা টেস্ট উভয় ফরম্যাটে কখনো ছক্কা হাঁকাতে পারেননি।। ডিয়ন ইব্রাহিম তার ক্যারিয়ারে ৮২টি ওয়ানডে এবং ২৯টি টেস্ট ম্যাচ খেলেছেন। এই সময় ওয়ানডেতে একটি সেঞ্চুরি ও চারটি হাফ সেঞ্চুরি রয়েছে আর এদিকে টেস্টে দশটি হাফ সেঞ্চুরি করলেও কখনও বলকে দর্শকের মধ্যে ফেলতে পারেননি।

২) থিলান সামারাবীরা:

শ্রীলঙ্কার হয়ে ধারাবাহিকভাবে রান সংগ্রহকারদের মধ্যে একজন ছিলেন থিলান সামারাবীরা। তিনি তার টেস্ট ক্যারিয়ারের দুর্দান্ত পারফর্ম করেছেন। তবে ওয়ানডে ক্যারিয়ারে ৫৩টি ম্যাচ খেলার পরেও একটিও ছক্কা হাঁকাতে পারেননি। যেখানে আজকালকার ব্যাটসম্যানরা একটি মাত্র ওয়ানডে ম্যাচেই ৪-৫টি ছক্কা হাঁকাতে সক্ষম হন।

৩) মনোজ প্রভাকর:

ভারতীয় দলের অলরাউন্ডার মনোজ প্রভাকরও তার ১২ বছর আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের মোট ১৩০টি ওয়ানডে ম্যাচ খেলেছেন। যেখানে দুটি সেঞ্চুরি ও ১১টি হাফ সেঞ্চুরি করার পরেও তিনি তার ওয়ানডে ক্যারিয়ারে একটিও ছক্কা মারতে পারেননি। এতগুলি ম্যাচ খেলার পরে একটিও ছক্কা হাঁকাতে না পারাটা আশ্চর্যের বিষয়।

৪) কলাম ফার্গুসন:

অস্ট্রেলিয়ার কালাম ফার্গুসন পুরো আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে একটিও ছক্কা হাঁকাতে পারেননি। তিনি একটি টেস্ট, ৩০টি ওয়ানডে এবং ৩টি আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন। এমনকি ৯টি আইপিএল ম্যাচ খেলার পরেও তিনি ছক্কা হাঁকাতে ব্যর্থ হয়েছেন। তার ওয়ানডে পরিসংখ্যান যথেষ্ট ভালো। ফার্গুসন ৩০টি ওয়ানডে ম্যাচে ৪১.৪৪ গড়ে ৬৬৩ রান করেছেন, যার মধ্যে রয়েছে কেবল ৫টি হাফ সেঞ্চুরি ও তার সর্বোচ্চ স্কোর ৭১ রান।

৫) জিওফ বয়কট:

ইংল্যান্ডের কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান স্যার জিওফ বয়কট টেস্ট ক্রিকেটের তুলনায় ওয়ানডের পারফর্ম খুব একটা ভালো নয়। তিনি ১০৮ টেস্টে ২২টি সেঞ্চুরিসহ ৮ হাজারেরও বেশি রান করছেন। এদিকে ওয়ানডেতে ৩৬টি ম্যাচে ১টি সেঞ্চুরি ও ৯টি হাফ সেঞ্চুরি করেছেন। এত কিছুর পরেও এই ফরম্যাটে একটিও ছক্কা হাঁকাতে পারেননি। ১৯৮২ সালে জিওফ বয়কট ভারতের বিপক্ষে তার শেষ আন্তর্জাতিক টেস্ট ম্যাচ খেলেছিলেন।

error: Content is protected !!