ক্রিকেট

ব্যাট হাতে শাসন করলেও অধিনায়ক হিসেবে পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছেন এই ৪ খেলোয়াড়

ক্রিকেটে অধিনায়কত্ব করা সবচেয়ে একটি কঠিন কাজ। সেই খেলোয়াড়কেই নেতৃত্বভার অর্পণ করা হয় যার মধ্যে অধিনায়ক হওয়ার সমস্ত গুণ রয়েছে। তবে কেউ কেউ অধিনায়ক হিসেবে সফল হয়েছেন আবার কেউ ব্যর্থ। ইতিহাস ঘাঁটলে এমন কিছু ক্রিকেটারের পরিচয় পাওয়া যায় ব্যাট হাতে বিশ্ব কাঁপালেও অধিনায়ক হিসেবে পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছেন। এই প্রতিবেদনে তাদের সম্পর্কে বিস্তারিত রইল: 

৪) হাশিম আমলা:

বিশ্বের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান হিসেবে নিজেকে প্রমাণ করেছিলেন হাশিম আমলা। তার ব্যাটিংয়ের কথা বললে, ১৫০টি ওয়ানডে ম্যাচে দ্রুত ৭,০০০ রানের গণ্ডি পার করেন, যা একটি বিশ্বরেকর্ড। এছাড়াও শততম টেস্টে সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছিলেন। ২০১১ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেট দলের নেতৃত্ব ভার পান। আমলার নেতৃত্বে ১৪ টেস্টে ৪টি জয়, ৪টি হার, ৬টি ড্র হয়। এদিকে ৯টি ওয়ানডেতে ৪টি জয় ও ৫টি পরাজয়ের মুখোমুখি হন। 

৩) ক্রিস গেইল: 

ক্রিস গেইল ব্যাট হাতে কতটা ভয়ঙ্কর হয়ে উঠতে পারেন তা কারোরই অজানা নয়। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের তিন ফরম্যাটে মোট ৫৫০টির বেশি ছক্কা হাঁকিয়েছেন, যা একটি বিশ্বরেকর্ড। তবে দলকে নেতৃত্ব দিতে গিয়ে পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছেন। ২০০৭ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের নেতৃত্ব ভার গ্রহণ করেন। গেইলের নেতৃত্বে ২০ টেস্টে ৩টি জয়, ৯টি হার, ৮টি ড্র হয়। এছাড়া ৫৩ ওয়ানডেতে ১৭টি জয় ও ৩০টি হারের মুখোমুখি হন। 

৩) ব্রায়ান লারা:

সর্বকালের সেরা ক্রিকেটারদের তালিকায় রয়েছেন ব্রায়ান লারা। ২০০৪ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তিনি টেস্ট ক্রিকেটে অপরাজিত ৪০০ রানের ইনিংস খেলে বিশ্বরেকর্ড করেন। কিন্তু অধিনায়ক হিসেবে তিনিও ব্যর্থ হয়েছেন। তিনি ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলকে ১৩ বছর নেতৃত্ব দেন। এই সময় ৪৭ টেস্টে ১০টি জয়, ২৬টি হার, ১১টি ড্র হয়। এছাড়া ১২৫টি ওয়ানডেতে ৫৯টি জয় ও ৫৯টিতে পরাজয়ের মুখোমুখি হন। 

১) শচীন টেন্ডুলকার:

শচীন টেন্ডুলকারের নামে অধিকাংশ ব্যাটিং রেকর্ডগুলি রয়েছে। তিনি তার ক্যারিয়ারে এমন কতগুলি কৃতিত্ব অর্জন করেছেন, যা কারোর পক্ষে ভাঙ্গা সম্ভব নয়। ২০০ টেস্ট ও ৪৬৩ ওয়ানডে আন্তর্জাতিক ম্যাচে মোট ৩৪ হাজারেরও বেশি রান করেছেন। এর পাশাপাশি ১০০টি সেঞ্চুরি — যা একটি বিশ্বরেকর্ড। কিন্তু দলকে নেতৃত্ব দিতে গিয়ে ব্যর্থতার মুখোমুখি হয়েছেন। শচীনের নেতৃত্বে ভারতীয় দল ২৫ টেস্টে ৪টি জয়, ৯টি হার, ১২টি ড্র হয়। এছাড়া ৭৩ ওয়ানডেতে ২৩টি ও ৪৩টি হারের মুখোমুখি হন। 

error: Content is protected !!