ক্রিকেট

বুমরাহকে বোলিং এর পরামর্শ দিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রল হলেন সঞ্জয় মাঞ্জরেকার

প্রাক্তন ভারতীয় ব্যাটসম্যান ও ভাষ্যকার সঞ্জয় মাঞ্জরেকারকে আবারো সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রল হলেন। এবার এটি ছিল ফাস্ট বোলার জাসপ্রিত বুমরাহকে পরামর্শ দেওয়ার কারণে। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে খেলা তৃতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচের সুপার ওভারে বুমরাহ ১৭ রান দিয়েছিলেন। এটির উপর সঞ্জয় মাঞ্জরেকর পরামর্শ দেন জসপ্রীত বুমরাহকে। বুজরাকে পরামর্শ দিয়ে মাঞ্জেরেকর একটি টুইট করেছিলেন, এরপরে ভক্তরা তাকে খারাপভাবে ট্রল করেন।

Image result for Sanjay Manjrekar

প্রথম ব্যাটিং নিয়ে তৃতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচে ভারত ২০ ওভারে আট উইকেটে ১৬৫ রান করে। নিউজিল্যান্ডও ২০ ওভারে সাত উইকেটে ১৬৫ রান করেছিল। নির্ধারিত ওভারে ম্যাচটি টাই হয় এবং সে কারণেই ম্যাচটি সুপার ওভারে গড়িয়েছিল। সুপার ওভার বল করতে আসেন বুমরাহ। এর পরে হ্যামিল্টনে খেলা চতুর্থ টি-টোয়েন্টি ম্যাচেও বুমরাহ সুপার ওভার করেছিল।

চতুর্থ টি-টোয়েন্টিতে সুপার ওভারে ১৩ রান সংগ্রহ দিয়েছিল বুমরাহ। সঞ্জয় মাঞ্জরেকার টুইট করেছেন, “বুমরাহর দেওয়া একটি সুপার ওভার দেখেছি। তিনি দুর্দান্ত বোলার, তবে ক্রিজটি তিনি আরও বেশি অ্যাঙ্গেল তৈরি করে ব্যবহার করতে পারতেন।”

সঞ্জয় মাঞ্জরেকার এমন ট্যুইট দেখার পরেই, নেটিজেনরা তাকে এক হাত নেয়। কেউ বলেন, “থামুন, আপনি শুধু একজন গড় ক্রিকেটার ছিলেন।” আরেকজন বলেন, “২০১৯ এর সঞ্জয় মাঞ্জরেকার ২০২০ তে ফিরে এসেছেন।” আরো একজন বলেছেন, “কেন সঞ্জয়? আপনার সাথে লোকেরা যখন খারাপ ব্যবহার করে আপনার হয়তো সেটাই এখন আবেগ হয়ে উঠেছে।” এভাবে অনেকেই তাকে নিয়ে ট্রল করতে থাকে। 

 

 

https://twitter.com/_tanmay1/status/1222864684035870722?s=20

এর আগে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচের পরে জাদেজা আরও একবার টুইটারের মাধ্যমে সঞ্জয় মাঞ্জরেকরকে ট্রল করেছিলেন, যদিও মঞ্জেরেকরও তাঁকে মজা করেই জবাব দিয়েছিলেন।

সেই ম্যাচে অপরাজিত ৫৭ রান করা কেএল রাহুলকে ‘ম্যান অফ দ্য ম্যাচ’ নির্বাচিত করা হয়। ম্যাচের পরে সঞ্জয় মাঞ্জেরেকার টুইট করেছিলেন, ‘ম্যাচের খেলোয়াড়ের বোলার হওয়া উচিত ছিল’। এতে রবীন্দ্র জাদেজা তাঁকে নিয়ে কটূক্তি করে লিখেছিলেন, ‘সেই বোলারের নাম কী? দয়া করে আমাকে বলুন।

error: Content is protected !!