Connect with us

Cricket

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের ইতিহাসে সবচেয়ে ব্যর্থ হওয়া পাঁচ অধিনায়ক

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কাজ। একজন ক্রিকেটার ব্যাটসম্যান অথবা বোলার হিসেবে সফল হলেও তিনি যে অধিনায়ক হিসেবে সাফল্য পাবেন তার কোন গ্যারান্টি নেই। অতীতের দিকে তাকালে এমন কয়েকজন অধিনায়ক রয়েছে যা এই বিষয়গুলি প্রমাণ করেছে। অবশেষে তারা বাধ্য হয়ে অধিনায়কের পদ ত্যাগ করেন।

আজকের প্রতিবেদনে রয়েছে, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের ইতিহাসে সবচেয়ে খারাপ পাঁচ অধিনায়ক! চলুন তাদের সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক –

১) হিথ স্ট্রিক: (জিম্বাবুয়ে)

Who would have predicted that: Heath Streak's best ODI bowling figures down  India

বর্তমানে এই বাংলাদেশি বোলিং কোচ দুর্দান্তভাবে কাজ করছেন তবে তার সময়ে সতীর্থ খেলোয়াড়দের তেমনভাবে অনুপ্রাণিত করতে পারেননি। ২০০০ থেকে ২০০৪ সাল পর্যন্ত জিম্বাবুয়ের অধিনায়ক দায়িত্ব পালন করেন। সেই সময় তিনি মোট ৬৮ ওডিআই ম্যাচে ৪৭টিতে পরাজিত হয় এবং মাত্র ১৮টিতে জয়ী হয়। তবে এখনও তিনি তার দেশের সেরা বোলার হিসাবে রয়েছেন।

২) অ্যান্ড্রু ফ্লিনটফ: (ইংল্যান্ড)

Freddie Flintoff wants silver and bronze medals SCRAPPED in sport – 'Who  wants to be reminded of being beaten?'

ইংল্যান্ডের হয়ে ২০০০ সাল থেকে ২০০৬ এর মধ্যে অ্যান্ড্রু ফ্লিন্টফ সুপারস্টার ছিলেন। ২০০৫ সালে অ্যাশেজ সিরিজ জয় তার অবিশ্বাস্য পারফরম্যান্স দীর্ঘ সময়ের জন্য স্মরণীয় হয়ে থাকবে। তিনি ইংল্যান্ডের ১১টি টেস্টে নেতৃত্ব দেন যার মধ্যে ২টি জয়, ২টি ড্র এবং ৭টি পরাজয়ের মুখোমুখি হতে হয়। সম্ভবত এই কারণে তিনি ব্যর্থ অধিনায়কদের তালিকায় নাম লিখিয়েছেন।

৩) ব্রায়ান লারা: (ওয়েস্ট ইন্ডিজ)

4 batting greats who never scored an ODI century against India

বিশ্বের সেরা বাঁহাতি ব্যাটসম্যানদের তালিকায় সবার শীর্ষে রয়েছেন ক্যারিবিয়ান রাজপুত্র ব্রায়ান লারা। ব্যাটসম্যান হিসেবে তিনি বোলারদের কাছে একটা দুর্ভেদ্য প্রাচীর ছিলেন, তবে অধিনায়ক হিসেবে তিনি ততটাই ব্যর্থ হন। তিনি ১২৫টি ওডিআইতে ৫০% ম্যাচে ব্যর্থ হন। অন্যদিকে ৪৭টি টেস্টে ১০টি জয়, ২৬টি হার এবং বাকিগুকি ড্র হয়।

৪) শচীন টেন্ডুলকার: (ভারত)

Top 10 Shortest Cricketers To Play The Game Of Cricket

শচীন টেন্ডুলকারের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের ১০০টি সেঞ্চুরি করেছে যা তার প্রতিভার একটি অন্যতম উজ্জ্বলতম নিদর্শন। তবে আলোচনার বিষয়বস্তু হলো তার অধিনায়কত্ব নিয়ে। কারণ যে সময়ে তাকে অধিনায়ক করা হয়েছিল তিনি কখনও প্রস্তুত ছিলেন না। তার নেতৃত্বে ২৫ টেস্টে ৪টি জয় এবং ৭৫ ওডিআইতে ২৩টিতে জয় পায় ভারত। এর পর চূড়ান্তভাবে ব্যর্থ হয়ে তিনি ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলা চালিয়ে যান।

৫) ক্রিস গেইল: (ওয়েস্ট ইন্ডিজ)

Chris Gayle named in 14-man squad for West Indies's ODI series against  England

সম্প্রতি টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের বাদশা ক্রিস গেইল ১৩ হাজার রান পার করেছেন। ক্লাইভ লয়েড এবং স্যার ভিভ রিচার্ডসের মতো কিংবদন্তিরা যে দেশটিকে গর্বিত করেছিল এখন তাদের মতো খুঁজে পাওয়া কঠিন হয়ে পড়েছে। বিশ্বজুড়ে টি-টোয়েন্টি লিগের লোভকে দায়ী করা হয়েছে যা প্রতিভাবান খেলোয়াড়দের দূরে সরিয়ে দিচ্ছে। অধিনায়ক হিসাবে গেইলের রেকর্ডটি লারার চেয়েও অনেক খারাপ ছিল। ৫৩টি ম্যাচে তিনি ১৭টি জয় এবং ৩০টি পরাজয়ের মুখোমুখি হন।

Continue Reading
Click to comment

Trending ..

To Top