ক্রিকেট

১৯৮৩ এবং ২০১১ সালের বিশ্বকাপ জয়ী ভারতীয় দলের সম্মিলিত সেরা একাদশ

ভারত বিশ্বকাপে অন্যতম সফল দল এবং তারা দুবার বিশ্বকাপ শিরোপা জিতেছে। ভারতের মতো ক্রিকেটপাগল দেশে বিশ্বকাপজয়ী দুটি দলই স্মরণীয় হয়ে আছে। ১৯৮৩ এবং ২০১১ সালে বিশ্বকাপজয়ী ভারতীয় দল দুটিই দুর্দান্ত খেলোয়াড়ে পরিপূর্ণ এবং ভারসাম্য ছিল এবং তাদেরকে অনেক প্রতিকূলতার মধ্য দিয়ে লড়াই করতে হয়েছিল। ভারতীয় দলকে দুটি বিশ্বকাপ জিততে ২৮ বছর অপেক্ষা করতে হয়, যা অত্যন্ত গর্বের বিষয়। 

এই প্রতিবেদনে, ১৯৮৩ এবং ২০১১ বিশ্বকাপজয়ী ভারতীয় দলের সেরা খেলোয়াড়দের একত্রিত করে সেরা একাদশ গঠন করা হয়েছে। এবার দেখে নেওয়া যাক:

□ ওপেনার: শচীন টেন্ডুলকার ও বীরেন্দ্র শেহবাগ

শচীন টেন্ডুলকার ক্রিকেটের একজন সেরা খেলোয়াড় তাতে কোনও সন্দেহ নেই। ২০১১ সালে ভারতকে চ্যাম্পিয়ন করার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছিলেন এবং তিনি ভারতের হয়ে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক ছিলেন। এদিকে ইনিংসের শুরুতে যেকোনও বোলিং আক্রমণের মনোবল ভেঙে দেওয়ার জন্য বিশেষ ক্ষমতার অধিকারী ছিলেন বীরেন্দ্র শেহবাগ। তিনি সবসময় রান রেটকে উচ্চ রাখতেন, যে কারণে অন্যান্য ব্যাটসম্যানেরা ক্রিজে বেশি সময় কাটানোর সুযোগ পেতেন।

□ মিডিল অর্ডার: গৌতম গম্ভীর, মহিন্দর অমরনাথ এবং মহেন্দ্র সিং ধোনি 

গৌতম গম্ভীর ওপেনার হলেও দলের স্বার্থে তিন নম্বরে ব্যাটিং করেন এবং ২০১১ বিশ্বকাপের ফাইনালে তিনি ৯৭ রানের একটি দুর্দান্ত ইনিংস খেলে বিশেষ অবদান রেখেছিলেন। ১৯৮৩ সালের বিশ্বকাপজয়ী ভারতীয় দলের সবচেয়ে বড় তারকা ছিলেন মহিন্দর অমরনাথ। তিনি ১৯৮৩ বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল ও ফাইনালে ম্যান অফ দ্যা ম্যাচ হয়েছিলেন।

প্রাক্তন ভারতীয় অধিনায়ক এমএস ধোনি ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যতম সেরা উইকেট রক্ষক ব্যাটসম্যান। চাপের মুখে খুব ভালোভাবে ব্যাটিং করতে পারতেন এবং ২০১১ বিশ্বকাপের ফাইনালে এমনই পরিস্থিতিতে তিনি একটি দুর্দান্ত ইনিংস খেলে ভারতীয় দলকে ২৮ বছর পর বিশ্বচ্যাম্পিয়ন করেন।

□ অলরাউন্ডার: যুবরাজ সিং, কপিল দেব ও রজার বিন্নি

২০১১ বিশ্বকাপে ম্যান অব দ্যা টুর্নামেন্ট জিতেছিলেন যুবরাজ সিং। পুরো টুর্নামেন্ট জুড়ে তিনি বোলিং ও ব্যাটিং দিয়ে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছিলেন। এদিকে কপিল দেব ১৯৮৩ সালের বিশ্বকাপে ভারতীয় দলের অধিনায়ক ছিলেন এবং জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তার ১৭৫ রানের ইনিংসটি দলের মনোবল বাড়াতে সাহায্য করে। বোলিং ব্যাটিং ছাড়াও ফাইনালে ভিভ রিচার্ডসের ক্যাচটি ক্রিকেটপ্রেমীদের আজীবন মনে থাকবে। এছাড়াও রাজার বিন্নির পারফরম্যান্স সত্যিই প্রশংসনীয় ছিল। ফাস্ট বোলার হিসেবে ১৮টি উইকেট নেন এবং ওই টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী ছিলেন।

□ বোলার: মদন লাল, হরভজন সিং এবং জাহির খান

১৯৮৩ বিশ্বকাপে ভারতীয় দল কে চ্যাম্পিয়ন করতে মদন লাল গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছিলেন। ফাইনাল ম্যাচে ভিভিয়ান রিচার্ডসের অমূল্য উইকেট নিয়েছিলেন তিনি। এছাড়াও ওই টুর্নামেন্টের তৃতীয় সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী ছিলেন। ২০১১ বিশ্বকাপে ভারতের সেরা স্পিনার ছিলেন হরভজন সিং এবং মাঝের ওভারগুলিতে প্রতিপক্ষ দলের উইকেট নিয়ে মেরুদণ্ড ভেঙে দেন। এমনকি রান কমিয়েও প্রতিপক্ষ দলকে চাপে রাখতেন। ২০১১ বিশ্বকাপে ফাস্ট বোলার জাহির খান যৌথভাবে সর্বোচ্চ উইকেট (২১) শিকারী ছিলেন। 

error: Content is protected !!