Connect with us

অজানা তথ্য

কোভিডের পর নতুন আতঙ্ক ‘ব্লাক ফাঙ্গাস’! এর করণীয় কী? নির্দেশিকা জারি করল সরকার

ভারতবর্ষে করোনা ভাইরাসের আতঙ্ক এবং পরিস্থিতি আরো ভয়াবহ হচ্ছে। এরই মাঝে দেখা দিয়েছে ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের মতো মারাত্মক রোগ, এটি অবহেলা করলেই জীবনহানির মত আশঙ্কা রয়েছে। এই সংক্রমণ ত্বকে শুরু হলেও মস্তিষ্ক এবং ফুসফুস পর্যন্ত ছড়িয়ে যেতে পারে। কেন্দ্রীয় সরকার এই রোগ নিয়ে সচেতন হতে একটি নির্দেশিকা জারি করেছে।

23andMe's Huge Covid-19 Study Draws Links Between the Virus and Our Genetics

বেশিরভাগ ক্ষেত্রে কোভিড আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের আক্রান্ত বেড়ে চলেছে। দিল্লি, গুজরাট, মহারাষ্ট্র ও বেঙ্গালুরুতে বেশ কয়েকটি জায়গায় এই রোগটি কোভিড আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে দেখা দিয়েছে।

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়া, ডায়াবেটিস রোগী বা যাদের রোগ-প্রতিরোধক্ষমতা একেবারেই কম তাদের মধ্যে এই রোগের আশঙ্কা সবচাইতে বেশি।

➡️ এবার জেনে নেওয়া যাক লক্ষণ গুলি কি কি:-

১) চোখে বা নাকে ভীষণ ব্যথা অনুভূত হওয়া কিংবা লাল হয়ে ফুলে যাওয়া।
২) জ্বর আসা,
৩) মাথা ব্যাথা,
৩) সর্দি কাশি,
৪) শ্বাস নিতে অসুবিধা,
৫) রক্ত বমি হওয়া,

Vomiting: Causes, Treatment, & When to See a Doctor
৬) বিকৃত মানসিক অবস্থা
৭) নাক বন্ধ হয়ে আসা, নাক থেকে চাপা রক্ত কিংবা কালো পুঁজ বের হওয়া।
৮) নাকের উপর কালচে দাগ দেওয়া
৯) তীব্র দাঁত ব্যথা হওয়া কিংবা দাঁত আলগা হয়ে আসা।
১০) দু চোখে ঝাপসা দেখা এবং একই জিনিস দুটো করে দেখা।
১১) বুকে ব্যথা ও সেইসাথে শ্বাস কষ্ট হওয়া।

➡️ এই পরিস্থিতিতে কী করবেন —

4 Signs You Should See a Doctor for Your Deviated Septum | Keck Medicine of USC

১) রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে।

২) যদি নাক দিয়ে কালো রঙের পুঁজ বেরিয়ে আসে, তারপর রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা মাপতে হবে।

৩) নির্দিষ্ট পরিমাণে এবং সময়মতো স্টেরয়েড নিতে হবে।

৪) অক্সিজেন থেরাপি চলাকালীন পরিষ্কার, স্টেরিলাইজ করা জল ব্যবহার করতে হবে।

৫) প্রয়োজন হলে অ্যান্টিবায়োটিক ও এন্টিফাঙ্গাল ওষুধও খেতে হবে।

➡️ কি কি করবেন না —

Mucormycosis: Everything to know about black fungus being witnessed in COVID-19 patients - The Financial Express

১) উপরিক্ত লক্ষণগুলি চিহ্নিত করতে হবে, একেবারেই অবহেলা করা যাবে না।

২) নাকে কালচে দাগ দেখলে অতিরিক্ত আতঙ্কিত হওয়ার কিছুই নেই, কারণ যে সমস্ত কোভিড আক্রান্ত রোগীদের রোগ প্রতিরোধকক্ষমতা কম, তাদেরই দেখা দিচ্ছে।

৩) ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের উপস্থিতি বুঝতে পারলে প্রয়োজনীয় পরীক্ষাগুলি করতে ভয় না পাওয়া (কেওএইচ স্ট্রেনিং, মাইক্রোস্কোপি, কালচার ইত্যাদি)।

৪) চিকিৎসা করতে একেবারেই অবহেলা না করা।

Continue Reading

সর্বাধিক জনপ্রিয়

To Top