Connect with us

লাইফস্টাইল

করােনার দ্বিতীয় তরঙ্গঃ মনে রাখতে হবে যে বিষয়গুলি

▪️ এবার পার্থক্য কোথায়?

১) ১৮ থেকে ৪৫ বছরের মানুষ আগের তুলনায় এ বার বেশি আক্রান্ত হচ্ছেন।

২) আক্রান্ত হওয়া সত্ত্বেও অনেকেরই প্রথম বার করােনা পরীক্ষায় ধরা পড়ছে না অসুখটি।

৩) স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের একাংশ বলছেন, আগের চেয়ে এ বার সাবধানতা অনেক কম।

▪️ এ বার নতুন কী কী উপসর্গ —

বমি শুধুমাত্র মাথা ব্যথা, শুধু পেটের গণ্ডগােল, শুনতে সমস্যা হওয়া, শারীরিক দুর্বলতা, পিঠে বা কোমরে ব্যথা।

▪️ মনে রাখতে হবে —

১) গন্ধ না পাওয়াটা করােনার এখনও পর্যন্ত সবচেয়ে বড় উপসর্গ।

২) করােনা আক্রান্ত কারও সঙ্গে টানা ১৫ মিনিট বা তার বেশি সময় কাটালে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা বেড়ে যায়। 

৩) সাধারণত এক বার সংক্রমণ হলে ভাইরাস ৯০ দিনের বেশি শরীরে থাকে না । তার পরে আবার সংক্রমিত হওয়ার অর্থ, সেটি দ্বিতীয় বারের সংক্রমণ।

৪) উপসর্গ রয়েছে, কিন্তু প্রথাগত করােনা পরীক্ষায় সংক্রমণ ধরা পড়ছে না। সে ক্ষেত্রে সিটি স্ক্যান করাতে হবে।

▪️ দ্বিতীয় তরঙ্গ থেকে বাঁচার রাস্তা —

১) সচেতন হন ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন।

২) মাস্ক পরা অনিবার্য। মাস্ক পরা এবং খােলার বিষয়ে চিকিৎসকের থেকে ভালো করে জানুন।

৩) টিকা নেওয়ায় কোনও গাফিলতি নয়।

৪) ভাজাভুজি নয়, স্বাস্থ্যকর খাবার খান, তরতাজা ফল খান ও বেশি করে জল খান।

৫) ডায়াবিটিস বা অন্য সমস্যায় ভুগছেন, এমন ব্যক্তিরা বেশি সচেতন থাকুন।

৬) বেশি শরীরচর্চা নয়, যােগাসন করুন। সেটাও বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিয়ে।

▪️ কেন টিকা নিতেই হবে?

টিকা নিয়েও অনেকে আক্রান্ত হচ্ছেন। কিন্তু পরিসংখ্যান বলছে, তাদের বেশির ভাগ হয় উপসর্গহীন, নয়তাে অল্প পরিমাণে ভুগছেন। তাই টিকা নেওয়া অবশ্যই উচিত।

Continue Reading

সর্বাধিক জনপ্রিয়

To Top