ক্রিকেট

২০০৬ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে প্রথম T20i খেলা ভারতীয় খেলোয়াড়রা এখন কোথায়

এই মুহূর্তে দর্শকেরা সবচেয়ে বেশি পছন্দ করেন টি-টোয়েন্টি ফরম্যাট এবং ভারতীয় দল এক নম্বর স্থানে রয়েছে। জানিয়ে রাখি, আজ থেকে ১৬ বছর আগে ২০০৬ সালে টিম ইন্ডিয়া বীরেন্দ্র শেহবাগের নেতৃত্বে প্রথম আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছিল। যেখানে দক্ষিণ আফ্রিকাকে ৬ উইকেটে পরাজিত করে ভারতীয় দল। সেই ম্যাচে ভারতীয় একাদশে যারা ছিলেন তারা এখন কোথায়, এবার জেনে নেওয়া যাক:

#১ বীরেন্দ্র শেহবাগ:

প্রাক্তন ওপেনার বীরেন্দ্র শেহবাগ ছিলেন ভারতের প্রথম টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক। এই ম্যাচে শেহবাগ শচীন টেন্ডুলকারের সাথে ইনিংস শুরু করেছিলেন, যেখানে তিনি ২৯ বলে ৫টি চার ও একটি ছক্কার সাহায্যে ৩৪ রান করেন। ২০১৫ সালে ক্রিকেট থেকে অবসর নিয়েছিলেন এই ডানহাতি ব্যাটসম্যান। অবসরের পর ধারাভাষ্যকার হিসেবে যোগদান করেছেন। এছাড়াও তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ সক্রিয়।

#২ শচীন টেন্ডুলকার:

‘ক্রিকেট ঈশ্বর’ শচীন টেন্ডুলকার মাত্র একটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন। দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে এই ম্যাচে শচীন টেন্ডুলকার ১২ বলে দুটি চারের সাহায্যে মাত্র ১০ রান করেন। শচীন ২০০টি টেস্ট খেলার পর ২০১৩ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নেন। বর্তমানের শচীনকে তার ইউটিউব চ্যানেলের মাধ্যমে ক্রিকেট-বিষয়ক মতামত দিতে দেখা যায় এবং আইপিএলে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স ফ্র্যাঞ্চাইজির সাথে যুক্ত।

#৩ দিনেশ মোঙ্গিয়া:

প্রাক্তন বাঁহাতি ব্যাটসম্যান দিনেশ মোঙ্গিয়া দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে তার ক্যারিয়ারে মাত্র একটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন। যেখানে তিন নম্বরে ব্যাটিং করার সময় ৪৫ বলে ৩৮ রান করেন। তার এই ইনিংসে সাজানো ছিল ৪টি চার ও একটি ছক্কা। তবে এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান ২০০৭ সালে তার শেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছিলেন। বর্তমানে তিনি রাজনীতিতে বিজেপি দলের হয়ে কাজ করছেন।

#৪ মহেন্দ্র সিং ধোনি:

অভিষেক টি-টোয়েন্টি ম্যাচে খাতা না খুলেই আউট হয়েছিলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। এই ম্যাচে উইকেট রক্ষক ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলেছেন ধোনি। এরপর ধোনির নেতৃত্বে ভারতীয় দল ২০০৭ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জিতেছিল। ২০২০ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর ঘোষণা করেন। কিন্তু তিনি এখনও চেন্নাই সুপার কিংস দলের হয়ে খেলছেন

#৫ দীনেশ কার্তিক:

দীনেশ কার্তিক প্রথম টি-টোয়েন্টি দলের একমাত্র সদস্য যিনি এখনো আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নেন নি। আইপিএল ২০২২-এ আরসিবির হয়ে খেলার সময় অসাধারণ পারফরম্যান্স করেছেন, যে কারণে তিনি জাতীয় দলের হয়ে খেলার আবারও সুযোগ পেয়েছেন। তিনি তার প্রথম আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ম্যাচে ২৮ বলে ৩টি চার ও একটি ছক্কার সাহায্যে অপরাজিত ৩১ রান করেন, যার জন্য তিনি ম্যান অব দ্য ম্যাচ নির্বাচিত হন।

#৬ সুরেশ রায়না:

সুরেশ রায়নাকে বলা হয় টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে মাস্টার প্লেয়ার। তবে প্রথম ম্যাচে রায়না মাত্র ৪ বল খেলে ৩ রান করেন। রায়না ভারতের ৭৮টি আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন এবং এই ফরম্যাটে প্রথম ভারতীয় হিসেবে সেঞ্চুরি করেন। আইপিএল ২০২২-এ অবিক্রীত হওয়ার পর রায়না এখন ক্রিকেট ধারাভাষ্যকার হিসেবে যোগ দিয়েছেন।

#৭ ইরফান পাঠান:

প্রাক্তন ভারতীয় অলরাউন্ডার ইরফান পাঠান তার অভিষেক আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ম্যাচে ৪ ওভারে ৩০ রান দিয়েছিলেন তবে কোনো উইকেট পাননি। ইরফান পাঠান ২০১২ সালে তার শেষ টি-টোয়েন্টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার পর ২০২০ সালে ক্রিকেট থেকে অবসর নেন। অবসর নেওয়ার পর ইরফান পাঠান জম্মু-কাশ্মীর দলের মেন্টরের ভূমিকায় ছিলেন এবং পরবর্তীকালে ধারাভাষ্যকার হিসেবে যোগদান করেন।

#৮ হরভজন সিং:

প্রাক্তন অফস্পিনার হরভজন সিং এই ম্যাচে মাত্র তিন ওভার বল করেন যেখানে ২২ রান দিয়ে একটি উইকেট নিয়েছিলেন। হরভজন সিং ২০১৬ সালে তার শেষ আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন এবং গত বছর ডিসেম্বরে ক্রিকেট থেকে অবসর ঘোষণা করেন। ক্রিকেটকে বিদায় জানানোর আগেই এই অভিজ্ঞ স্পিনার ধারাভাষ্যকার হিসেবে কাজ শুরু করেছিলেন।

#৯ জাহির খান:

ভারতীয় দলের অন্যতম সফল ফাস্ট বোলার জাহির খান এই ম্যাচে ভালো বোলিং করে দলের জয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছিলেন। এই ম্যাচে ৪ ওভার স্পেলে মাত্র ১৫ রান দিয়ে দুটি উইকেট নেন তিনি। ২০১৫ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর ঘোষণা করেন। বর্তমানে জাহির খান মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স ফ্র্যাঞ্চাইজির পরিচালকের ভূমিকায় রয়েছেন।

#১০ অজিত আগারকার:

অজিত আগারকার এই ম্যাচের দ্বিতীয় ফাস্ট বোলারের ভূমিকায় দুর্দান্ত বোলিং করেছিলেন। এই ম্যাচে ২.৩ ওভারে মাত্র ১০ রান দিয়ে দুটি উইকেট নেন তিনি। এই সময় একটি ওভার মেডেনও করেছিলেন। ২০১৩ সালে অজিত আগারকার সব ধরনের ক্রিকেট থেকে অবসর নেন এবং পরবর্তীকালে ধারাভাষ্যকার হিসেবে দেখা যায়। আইপিএল ২০২২-এ দিল্লি ক্যাপিটালসের সহকারি কোচের ভূমিকায় দেখা যায় তাকে।

#১১ এস শ্রীশান্ত:

দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলার সুযোগ পেয়েছিলেন ডানহাতি ফাস্ট বোলার এস শ্রীশান্ত। এই ম্যাচে শ্রীশান্ত ৪ ওভারের স্পেলে ৩৩ রান খরচ করে একটি উইকেট নেন। চলতি বছরের মার্চে ক্রিকেট থেকে অবসর ঘোষণা করেন ৩৯ বছর বয়সী শ্রীশান্ত। যদিও অনেক রিয়্যালিটি শোতে মাঝেমধ্যে দেখা যায় তাকে।

error: Content is protected !!