স্বাস্থ্য

ঠাণ্ডা না গরম দুধ – শরীরের পক্ষে কোনটি উপকার? জেনে নিন

বর্তমানে সকলেই প্রত্যেকের কর্ম জীবনে খুবই ব্যস্ত। আর এই ব্যস্ততার কারণেই যথাযথ খাবার খাওয়ার সময় কেউই পাইনা। এর ফলেই বেড়ে চলেছে প্রতিনিয়ত ফাস্টফুড খাবার প্রবণতা। যা স্বাস্থ্যের পক্ষে খুবই ক্ষতিকারক। আর এরফলেই দেখা দিচ্ছে দুর্বলতা ও অলসতা ভাব। এই দুর্বলতা কাটানোর জন্য আমাদের প্রতিদিন খাবারের তালিকায় ল্যাকটোজ জাতীয় খাদ্য বা দুধ রাখা উচিত। 

কিন্তু গরম দুধ নাকি ঠান্ডা দুধ আমাদের শরীরের পক্ষে বেশি উপকারী তা আমরা অনেকেই জানিনা। আসুন এ বিষয়ে জেনে নেওয়া যাক।

প্রতিনিয়ত দুধ পান করা আমাদের শরীরের পক্ষে খুবই উপকারী। এতে থাকে ক্যালসিয়াম, ভিটামিন ডি ও পটাশিয়াম যা শরীরে পুষ্টি যোগায়। আর দুধ পান করার ক্ষেত্রে গরম ও ঠান্ডা দু’রকম দুধেরই ভিন্ন উপকারিতা রয়েছে। 

গরম দুধ পান করার একটি সুবিধা হল এটি খুব সহজে হজম হয়ে যায়। আর আপনার যদি ল্যাকটোজ জাতীয় খাদ্য হজমে অসুবিধা হয় তাহলে আপনার কখনোই ঠান্ডা দুধ খাওয়া উচিত নয়।

আপনার যদি স্লিপ অ্যাপনিয়া থাকে তাহলে ঘুমাতে যাবার আগে এক গ্লাস গরম দুধ পান করা আপনার পক্ষে ভালো। দুধে আছে ট্রিপটোফ্যান নামে এক অ্যামিনো অ্যাসিড যা আপনাকে ভালোভাবে ঘুমাতে সাহায্য করবে।

পেটের অম্লতা জনিত সমস্যার জন্য ঠান্ডা দুধ খুবই উপকারী। খাওয়ার পর আধ গ্লাস দুধ পান করলে এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব হয়।

ঠান্ডা দুধ আপনার শরীরের জলের ঘাটতি পূরণ করতে সক্ষম হয়। এছাড়া সকাল বেলা ঠান্ডা দুধ পান করার ক্ষেত্রে আদর্শ। তবে আপনার যদি সর্দি বা ফ্লু-এর সমস্যা থাকে তবে এই ঠান্ডা দুধ পান না করা উচিত।

চিকিৎসকদের মতে, খুব বেশি গরম দুধ একটু এড়িয়ে চলা ভালো এর পরিবর্তে হাল্কা গরম দুধ পান করা যেতে পারে।

ঠিক সেইভাবেই ফ্রিজ থেকে বের করা ঠান্ডা দুধ সাথে সাথেই খাওয়া উচিত নয় কিছুক্ষণ রেখে দিয়ে স্বাভাবিক তাপমাত্রায় এনে তবেই খাওয়া উচিত।

error: Content is protected !!