অন্যান্য

পাকিস্তানে ১ লিটার দুধের দাম পেট্রোল বা ডিজেলের চাইতেও অনেক বেশি

আমাদের প্রতিবেশী পাকিস্তান যে এখন আর্থিক সংকটে পড়েছে একথা আর কারোর কাছে অজানা নয়। এখন পাকিস্তানের দুধের দাম শুনে সেখানকার মানুষেরা চরম আতঙ্কের মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন। মহরম উৎসবে পাকিস্তানের বেশ কয়েকটি শহরে দুধের দাম এত বেশি বেড়ে গিয়েছে যা সেখানকার পেট্রোল বা ডিজেলের চাইতেও অনেক বেশি। এর ফলে সেখানকার নাগরিকরা খুবই অসুবিধার মধ্যে পড়েছে।

এই সময়ে পাকিস্তানের পেট্রোপণ্যের যা মূল্য চলছে তাই নাকি গরুর দুধে চাইতে অনেক কম। যা শুনে গোটা বিশ্বে হাসির খোরাক হয়েছে পাকিস্তান। জেনে আরো হাসবেন যে, প্রতিবেশী দেশটির এই দুর্দিনে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান মন্ত্রী মহলে চা-বিস্কুট পর্যন্ত বন্ধ করে দিয়েছে, শুধুমাত্র খরচ বাঁচানোর জন্য। সেখানে পেট্রোলের দাম প্রতি লিটার ১১৫ টাকা এবং ডিজেলের দাম লিটার পিছু ৯০ টাকা, হঠাৎ সেখানে দুধের দাম বেড়ে গিয়ে দাঁড়িয়েছে ১৪০ টাকা। এক বিক্রেতা জানিয়েছেন যে, মহরম উৎসবের জন্য বহু মানুষ মিছিলে শামিল হন এবং খেতে দেয়া হয় পানীয় জাতীয় অনেক খাবার যার ফলে দুধের দাম বেড়ে গিয়েছে আর সমস্যায় পড়েছে মধ্যবিত্ত মানুষেরা।

এরপরেও সেখানে খাদ্যমন্ত্রীর কোনরকম হেলদোল পর্যন্ত নেই। বর্তমান দুধের দাম অনুযায়ী সেখানে লিটারপ্রতি ৯৫ টাকা, সেটা বেড়ে এখন হয়েছে ১৪০ টাকা। শুধু দুধ নয় অন্যান্য প্রয়োজন সামগ্রী গুলি চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে এখন পাকিস্তানে। দেশটির অর্থনৈতিক ভান্ডার প্রায় শূন্য হতে চলেছে। আর্থিকভাবে ভেঙে পড়া এই দেশটির উন্নতি করতে পাক সরকার ইমরান খান মরিয়া হয়ে উঠেছেন। তাদের কাছে কাশ্মীর নিয়ে জাতীয় সমস্যা হলেও এই পথ থেকে ধীরে ধীরে তারা ক্রমশ সরে দাঁড়িয়েছে দেশের আর্থিক হাল ফেরানোর জন্য। যারা কিছুদিন আগে ভারতকে পরমাণু যুদ্ধের হুমকি দিয়েছিল তারা এখন আর্থিক সংকটের অভাব বুঝতে পেরে সমস্ত ব্যাপারগুলিকে ধামাচাপা দিয়ে দিয়েছে।

error: Content is protected !!